ইসলামপুরে অসহায় বিধবার ভাতা কেড়ে নিয়েছে ইউপি সদস্য

ইসলামপুরের সাপধরী ইউনিয়নের পূর্ব মন্ডলপাড়া গ্রামের অসহায় বিধবা শিরিনা আক্তারের বিধবার ভাতা কেড়ে নিয়েছে ইউপি সদস্য।

জানাগেছে, পূর্ব মন্ডলপাড়া গ্রামের বিধবা শিরিনা আক্তার তিনটি অনাথ শিশু সন্তানকে নিয়ে দিন কাটান অনাহারে অর্ধাহারে। শিরিনার স্বামী মজনু চৌধুরী গত ২০১৬ সনে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।

- Advertisement -

এরপর তিনি নিজের ও সন্তানদের জীবন বাঁচাতে অন্যের বাড়ীতে ঝিয়ের কাজ করছিলেন। এসময় শিরিনার আর্থিক দৈন্যতা লাঘবে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিদের সুপারিশে সাপধরী ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন তাকে একটি বিধবা ভাতা কার্ড প্রদান করেন। এ নিয়ে শিরিনা তিন শিশুকে নিয়ে কোনো রকমে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখছিলেন। কিন্তু বিধি বাম! কারণ শিরিনা আক্তার ২০১৭ সনের জুলাই থেকে ২০১৮ সনের ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৮ মাসের বিধবা ভাতা ৯ হাজার টাকা এককালীন উত্তোলন করলে ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজ মন্ডল তার বিধবা ভাতার ৯ হাজার টাকার মধ্য থেকে ৮ হাজার টাকাই কেড়ে নিয়েছেন।

পরবর্তীতে শিরিনা আক্তার গত ১০ ফেব্রæয়ারি ২০১৯ সনের জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সনের জুলাই পর্যন্ত ৬ মাসের বিধবা ভাতা ৩ হাজার টাকা উত্তোলন করলেও ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজ মন্ডল তার নিকট থেকে আবারো ১ হাজার টাকা কেড়ে নেন।

এদিকে ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজ বিধবা শিরিনার বিধবা ভাতার সরকারি ৯ হাজার টাকা দুই দফায় কেড়ে নেওয়ায় শিরিনার দিন কাটছে অনাহারে অর্ধাহারে এবং ক্ষুধার জ্বালায় চোখের পানি ঝরাচ্ছে তার অনাথ শিশুরা। এতে বিধবা ভাতার টাকায় বেঁচে থাকার স্বপ্নটাও হারিয়েছেন শিরিনা আক্তার।

এদিকে অসহায় বিধবার ভাতা কেড়ে নেওয়ার ঘটনা জানাজানি হলে এলাকার সচেতন মহলেও চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। তাই সচেতন এলাকাবাসী অসহায় বিধবার টাকা উদ্ধারসহ দুর্ণীতিবাজ ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজ মন্ডলকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -