গাজীপুরে গৃহবধূর ৭ টুকরা লাশ উদ্ধার, স্বামী আটক

gazipur

আটক জুয়েল সুনামগঞ্জের বিশ্বাম্ভরপুর উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের কচিরগাতি গ্রামের আব্দুল বাতেনের ছেলে। তার স্ত্রীও একই গ্রামের মেয়ে।

- Advertisement -

জয়দেবপুর থানার এসআই মো. রাকিবুল ইসলাম জানান, দুই বছর আগে জুয়েল আহমেদের সঙ্গে এই নারীর বিয়ে হয়। প্রেমে জড়িয়ে তারা পালিয়ে বিয়ে করে মনিপুর এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন।

জুয়েলকে জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, “বৃহস্পতিবার পারিবারিক কলহের এক পর্যায়ে শৌচাগারে ঢুকে আত্মহত্যা করেন এই নারী। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর ফেঁসে যাওয়ার ভয়ে লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে মৃতদেহ সাতটি খণ্ড করে কাপড়ে মুড়িয়ে একটি বস্তায় ভরে হোতাপাড়া মনিপুর এলাকায় ফেলে রাখেন।”

পুলিশ জানিয়েছে, জুয়েলের স্ত্রী তাদের ভাড়া বাড়ির পাশেই একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। জুয়েলও চাকরি করতেন; তবে সম্প্রতি চাকরি চলে গেলে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করেন।

এই বিষয়ে পুলিশ পরিদর্শক নাজমুল হুদা বলেন, “স্থানীয়রা ফোন দিয়ে ঘটনা সম্পর্কে অবগত করার পর স্বামীকে আটক করি এবং তার স্বীকারোক্তি মতো ভাড়া বাড়ির আশপাশে তল্লাশি চালিয়ে লাশের সাতটি খণ্ড উদ্ধার করা হয়।”

ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -