তরুণদের স্বেচ্ছাশ্রমে চালু হয়েছে ব্যতিক্রমধর্মী বাজার

Dewanganj bazar
দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার প্রশাসনের "সাধ্যের মধ্যে বাজার" এর সেচ্ছাসেবক। ছবি: দেওয়ানগঞ্জ নিউজ।

করোনা মহামারীতে সারাদেশ যখন লকডাউনে স্থবির হয়ে পরেছে, সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ যখন নিরুপায় হয়ে পড়েছে। পরিবারের খাবার সংগ্রহে অসহায় পরিবারের কর্তা ব্যক্তিরা। সেই সকল অসহায়, হতদরিদ্র সল্প আয়ের মানুষদের মাঝে সল্প মূল্যে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে হাজির হয়েছেন জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার কিছু তরুণ যুবক। তাদের স্বেচ্ছাশ্রম ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রতিদিন দুপুর ২ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত এইসব সল্প আয়ের মানুষের মাঝে বিভিন্ন নিত্য প্র‍য়োজনিয় পণ্য বিক্রি হয়ে থাকে।

উপজেলার বেশ কিছু স্থানীয় তরুণ তারা নিজেরা সেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে সুশৃক্ষলভাবে এইসব পণ্য সামগ্রী সল্প মূল্যে বিক্রি করছেন। তারা সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে এই সাধ্যের মধ্যে বাজারটি পরিচালনা করে,আবার সন্ধ্যা বেলায় দরিদ্র অসহায় মানুষদের মাঝে ইফতারের খাবার বিনামূল্যে বিতরণ করে। এই সকল স্বল্প আয়ের মানুষদের মাঝে সামান্য হাসি এনে দিতে পেরে তারা আনন্দিত।

- Advertisement -

স্বেচ্ছাসেবক এই তরুণদের একজন সৌরভ হাসান দেওয়ানগঞ্জ নিউজকে বলেন, আমরা স্থানীয় তরুণ সমাজ সল্প আয়ের মানুষদের মাঝে বাজার মূল্য থেকে কম দামে পণ্য সরবরাহ করতে পারছি। এই করোনা মহামারীতে এইসব মানুষ কাজ করতে না পেরে অসহায় অবস্থায় দিন যাপন করছেন। তারা যেন অনাহারে না থাকে তাই আমরা তাদের সাধ্য অনুযায়ী একটি আদর্শ বাজারের ব্যাবস্থা করা করেছি। আর এই কাজে আমাদের সকল ধরনের সহায়তা দিচ্ছেন দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব আব্দুর রশিদ স্যার।

বাজার করতে আসা রাবিয়া খাতুন দেওয়ানগঞ্জ নিউজকে জানান, আমার সোয়ামি (স্বামী) ইশকা (রিক্সা) চালায়। সরকারের এই লকডাউনে আমগোরে (আমাদের) কামায় (ইনকাম) একেবারে বন্ধ। আমরা করো কাছে হাত পাততেও পারি না। এই বাজার আমগোর জন্য রহমত স্বরূপ। যারা এই বাজার বসায়ছে তাগোর (তাদের) যেন আল্লাহ্ অনেক ভালো রাহে (রাখে)। আর এহানে (এখানে) যে পোলাপান গুলা কাম (কাজ) করে তারা মেলা(অনেক) কষ্ট করে। তাগোর (তাদের) জন্য ই আমরা ভালোভাবে জিনিস কিনবার পারি।

Dewanganj
সল্প আয়ের মানুষদের মাঝে বাজার তুলে দিচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুর রশিদ। ছবি: দেওয়ানগঞ্জ নিউজ।

সেচ্ছায় যারা এই মানবতার কল্যাণে এগিয়ে এসেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন সৌরভ, হৃদম, দিবস, নিবির, সজল, রুপম, শোভন, ফজলে রাব্বী, নাঈম, উজ্জ্বল, সিয়াম, শিশির, নাজমুল, রাকিব, রোহান, রেশাদ,সোহান, নিংকন, আসিফ, সানি’সহ আরো অনেকে।
এছাড়াও পাশে থেকে সহযোগিতা করেছেন দেওয়ানগঞ্জ নিউজের সম্পাদক শাওন আহমেদ’সহ উপজেলা ভিত্তিক জনপ্রিয় দুইটি ফেসবুক গ্রুপ ” প্রিয় দেওয়ানগঞ্জ” ও ” হ্যালো দেওয়ানগঞ্জ” এর সদস্যবৃন্দ।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার আব্দুর রশিদ দেওয়ানগঞ্জ নিউজকে জানান, আমি যতদূর পেরেছি উপজেলার সল্প আয়ের মানুষদের মাঝে “সাধ্যের মধ্যে বাজার” করার ব্যাবস্থা করে দিয়েছি । এইসব কাজে সার্বিক সহযোগিতা করে যাচ্ছে স্থানীয় কিছু তরুণ। তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমেই আমাদের এই বাজার ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।তাদের জন্যই এটি খুবই সুষ্ঠ ভাবে পরিচালিত হচ্ছে। আমি ব্যাক্তিগতভাবে তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।

তিনি আরো বলেন, অন্যান্য উপজেলায় সল্প আয়ের মানুষের মাঝে ভিন্নধর্মী সহায়তা করে যাচ্ছে। তাদের দেখেই আমি চিন্তা করেছি আমি যদি এই করোনা মহামারীত সল্প আয়ের মানুষের মাঝে “সাধ্যের মধ্যে বাজার” করার ব্যাবস্থা করতে পারি। তাহলে কিছুটা হলেও তাদের কষ্ট লাঘব হবে। আর এইটাই হবে আমার সার্থকতা।

উল্লেখ্য যে, গত ৬ মে এইবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুর রশিদ উদ্বোধন করেন। ঈদের আগের দিন পর্যন্ত দুপুর ২ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত বাজার খোলা থাকবে বলে জানা গেছে।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -