তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন

তাপদাহ আর তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে জনজীবন। একদিকে সূর্যের প্রখর তাপ অন্যদিকে তীব্র গরম। গরমের তীব্রতায় অতিষ্ঠ জনজীবন। তবে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছে কর্মজীবী মানুষ। কয়েক দিন বৃষ্টি না হওয়া আর প্রচণ্ড রোদে ঘর থেকে বের হতে পারছে না শ্রমিক, দিন মজুরসহ খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষগুলো। সামান্য স্বস্তির ও একটু শীতল পরিবেশের জন্য ছুটছে গাছের ছায়াতলে। আর অতিরিক্ত গরমে একটু শীতল পরিবেশ ও স্বস্তির জন্য বিভিন্ন শরবত ও পানীয়র দোকানে ভিড় করছেন তারা।
 
সকালে শীতের আগাম বার্তা দেখা দিলেও দুপুরে সেই অতিচেনা তাপদাহে অতিষ্ট হয়ে পড়ছে খেটে খাওয়া মানুষ।  আজ শুক্রবার ৩০ আশ্বিন জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস ফারেনহাইট। গত এক সপ্তাহ থেকে তাপমাত্রা স্থায়ী হয়ে রয়েছে। সকালে কিছুটা কুয়াশা দেখা দিলেও দুপুর থেকে সন্ধার আগ পর্যন্ত সূর্যের তীব্র  উত্তাপে কর্মমূখী খেটে খাওয়া মানুষ দুর্বিসহ জীবনযাপন করছে। 
 
আবহাওয়ার তথ্য মতে,  ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে কিছুটা তাপদাহ কমতে শুরু করবে। সেই সাথে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তারপর থেকে ধীরে ধীরে কমে যাবে তাপদাহ। 
 
সূর্যের তীব্র তাপে ফসলী জমি ফেটে চৌচির হয়ে পড়ছে। অপর দিকে বৃষ্টি না হওয়ায় আরো ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে এই উপজেলার কৃষকদের। বর্তমানে সেচের মাধ্যমে জমিতে পানির ব্যাবস্থা করতে হচ্ছে তাদের। গত বছর সেপ্টেম্বর শেষে ও অক্টোবরের প্রথম দিকে বৃষ্টিপাত শুরু হলেও এবার অক্টোবরের ১৫ তারিখ অতিবাহিত হচ্ছে তবুও বৃষ্টির দেখা মিলছে না।  
 
নুর আলম নামের এক রিকশাচালক বলেন,‘প্রচণ্ড গরম আর রোদের কারণে রিকশাচালাতে খুব কষ্ট হচ্ছে। সেই সঙ্গে তেমন যাত্রীও মিলছে না। তারপরও পেটের দায়ে রিকশা চালাচ্ছি।
 
আজ শুক্রবার  উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সকাল ৮ টা পর্যন্ত বিভিন্ন গাছের পাতা, ঘাস ও ধান ক্ষেতে শিশির জমে থাকছে। ভোর রাতে শরীরে কিছুটা শীতল অনুভূত হলেও। রাত্রির অগ্রভাগে গরমের মাত্রায় অতিষ্ট হয়ে পড়ছে সাধারণ মানুষ। একদিকে গরমের উত্তাপে অসহ্য হয়ে পড়ছে মানুষ অন্যদিকে বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিং এর কারণে জনজীবন অতিষ্ট।
 
বাংলা পঞ্জিকা অনুয়ায়ী  আজ শুক্রবার  ৩০ আশ্বিন। সেই অনুযায়ী শরতের দ্বিতীয় মাস। এর পর হেমন্তের দুই মাস পর শুরু হবে শীতকাল। তখন জনমনে ফিরে আসবে স্বস্তি। 
আপনার মতামত দিন
- Advertisement -