দেওয়ানগঞ্জে জলাশয় দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ৪, গ্রেফতার ১

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে জলাশয় দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। দু’পক্ষের সংঘর্ষে ৪ জন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। তারমধ্যে মিকরাইল নামের একজন গুরুতর অসুস্থ। সে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা তাঁতী লীগের সহ-সভাপতি হিসেবে রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা তাঁতীলীগের সাধারণ সম্পাদক জুনায়েদ করিম সুজন।

গতকাল শুক্রবার (১৮ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলার চুনিয়াপাড়া গ্রামে জলাশয়ের পাশে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় ভুক্তভুগী রুজিনা বেগম ১০ জনকে আসামী করে দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করলে পুলিশ ১ জনকে গ্রেফতার করে।গ্রেফতারকৃত আসামি রনিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চুনিয়াপাড়ার ২৮ একর জমির উপর জলাশয়টি অবস্থিত। জলাশয়ে সারাবছর পানি থাকায় বর্ষার সময় দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন মাছ আটকা পরে। জমির মালিকগণ দীর্ঘদিন জলাশয়ে না যাওয়ায় তাদের কেউ মাছ চাষ করেন না। জলাশয়ের সঠিক মালিকানা না থাকায় একেক সময় একেক জন প্রভাবশালী জলাশয়টি দখলে নিয়ে মাছ চাষ করেন। তারা আরো জানান, জলাশয়টি কিছুদিন পূর্বে উত্তর কালিকাপুর ফকিরপাড়া গ্রামের মৃত চানমলের ছেলে আমজাদ হোসেন ডেন্ডুসহ কয়েকজন দখল নিয়ে মাছ চাষ করছেন। গত দুই মাস আগে জলাশয়ে মাছের পোনা ছাড়েন মধ্য চুনিয়াপাড়া গ্রামের মিকরাইল হোসেন। এনিয়ে আমজাদ হোসেন ডেন্ডুর সাথে মিকরাইল হোসেনের বিরোধের সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন আমজাদ হোসেন ডেন্ডু কয়েকজনকে নিয়ে ওই জলাশয়ে গেলে মিকরাইল হোসেনের প্রথমে বাগবিতণ্ডা হয়। সে সময় আশেপাশের লোকজন ছুটে আসে সেখানে। উপস্থিত লোকজন সে সময় আমজাদ হোসেন ডেন্ডু ও মিকরাইলের দুটি দলের সৃষ্টি হয়। বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এসময় উভয়পক্ষের ৪ জন আহত হয়। আহতদের দেওয়ানগঞ্জ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য জামালপুর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। জানা যায়, আহত মিকরালের অবস্থা আশংকজনক।

আমজাদ হোসেন ডেন্ডু জানান, ওই জলাশয়টি  কয়েক বছর যাবৎ আমাদের দখলে রয়েছে। আমরা তাতে মাছ চাষ করছি। মিকরাইল আমাদের না জানিয়ে ওই জলাশয়ে মাছের পোনা ছারে। বিষয়টি নিয়ে কয়েকদফা সালিশ বৈঠক হয়। ঘটনার দিন আমরা ওই জলাশয় দেখতে গেলে  মিকরাইল ও তার লোকজন আমাদের ওপর হামলা করে মারধর করে।

মিকরাইলের স্ত্রী ও মামলার বাদী রুজিনা বেগম জানান, ওই জলাশয়ে আমাদের সাড়ে ৫ বিঘা জমি রয়েছে। আমরা কিছুদিন আগে এই জলাশয়ে মাছের পোনা ছারি। ঘটনার দিন ডেন্ডু আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। তারা আমার স্বামীকে পেটে খুড় দিয়ে আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হন। এঘটনায় ন্যায় বিচারের জন্য থানায় মামলা দায়ের করেছি।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মহব্বত কবির জানান, এব্যাপারে থানায় ১০ জনকে আসামী করে মামলা হয়েছে। ইতিমধ্যে পুলিশ রনি নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -