দেওয়ানগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদযাপন

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শতবর্ষ উদযাপন করা হয়েছে। ১৯১৯ইং সালে প্রতিষ্ঠিত এই বিদ্যালয়টি ২০১৯ইং সালে শতবর্ষে পা দিলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে উদযাপন করা সম্ভব হয়নি। নবীন-প্রবীণদের উপস্থিতিতে জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়টি শতবর্ষ উদযাপন করে।

আজ ৭ মে (রবিবার) দেওয়ানগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শতবর্ষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য ৩ হাজার শিক্ষার্থী রেজিষ্ট্রেশন করেন। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী দেওয়ানগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুনুর রশিদ এবং সভাপতিত্ব করেন শতবর্ষ উদযাপন কমিটির চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ।

- Advertisement -

কিছু সময়ের জন্য বিদ্যালয়ের নবীন-প্রবীণ শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়েছিল বিদ্যালয় মাঠ। অনেকেই পুরাতন বন্ধু ও বড়ভাই এবং ছোটদেরদের কাছে পেয়ে অবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। তারা বিভিন্ন গ্রুপে বন্ধুদের সাথে একত্রিত হয়ে পূরণ স্মৃতি চারণে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

অনুষ্ঠানে সাবেক কৃতি শিক্ষার্থীগণ বক্তব্য প্রদান করে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাতাদের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জানান। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এই বিদ্যালয় আজ শতবর্ষের পৌঁছেছে তাদের কেউ আজ পৃথিবীতে বেচেঁ নেই। তাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য এম রশিদুজ্জামান মিল্লাত, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) আবু বকর সিদ্দিক, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোলায়মান হোসেন, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুন্নাহার শেফারসহ বিদ্যালয়ের কৃতি শিক্ষার্থীবৃন্দ।

আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উল্লেখ্য যে, ১৯১৯ইং সালে দেওয়ানগঞ্জ কো-অপারেটিভ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়ে কালের পরিক্রমায় দেওয়ানগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় নামে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ২০১৯ ইং সালে শতবর্ষ উদযাপনের সকল আয়োজন শেষ হলেও সারাদেশে কভিড-১৯ এর কারণে আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। যার কারণেই ৩ বছর পর আজ জমকালোভাবে আজ অনুষ্ঠিত হয়।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -