দেওয়ানগঞ্জে দেবরের আঘাতে ভাবির মৃত্যু

dewanganj
অভিযুক্ত দেবর মোস্তফা এবং তার স্ত্রী স্বপ্না বেগম। ছবিঃ দেওয়ানগঞ্জ নিউজ।

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে দেবরের হামলায় ভাবির মৃত্যুর হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (২২ জুন) জামালপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

প্রত্যক্ষদর্শীর মাধ্যমে জানা যায়, গতকাল সোমবার (২১ জুন) রাত ৯.৩০ মিনিটে বড় ভাইয়ের বউ (নিহত) তাদের প্রতিবেশীদের কাছের ছোট ভাই এবং তার স্ত্রীর নামে জমিসংক্রান্ত গীবত বলে বেড়াচ্ছে। এমন কিছু নিয়ে দুই ভাই এবং তাদের বউদের সাথে কথা কাটাকাটি বাধে। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছোট ভাই (দেবর) ও তার স্ত্রী বড় ভাইয়ের বউয়ের মাথায় আঘাত করে। আঘাতের সাথে সাথেই ব্যাপক রক্তক্ষরণ শুরু হলে তাকে নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দারের সহায়তায় দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থার অবনতি দেখলে তাকে দ্রুত জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেন। দ্রুত জামালপুর হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্য ঘোষণা করেন।

- Advertisement -

মারা যাওয়া ওই গৃহবধূর নাম ফুলেরা বেগম (২৭)। তিনি দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার বাদে-শশারিয়াবাড়ী (গোজিমারী) এলাকার আবুল কালামের স্ত্রী। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তাঁর দেবর হলেন মোস্তফা (৪০) ও তার স্ত্রী স্বপ্না বেগম।

নিহত গৃহবধূ ফুলেরা বেগমের বড় ছেলে শেখ ফরিদ দেওয়ানগঞ্জ নিউজকে বলেন,  আমার চাচার সঙ্গে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এরই সূত্র ধরে ২১ জুন রাত ৯.৩০টার দিকে বাড়িতে ঢুকে চাচা মোস্তফা ও তার স্ত্রী স্বপ্না আমার মায়ের ওপর হামলা চালায়। এ সময় লাঠির আঘাতে আমার মা ফরিদা বেগম গুরুতর আহত হন। রাতেই প্রতিবেশীদের সহযোগীতায় দেওয়ানগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি নেওয়া হয়। অবস্থার খারাপ দেখে ডাক্তার জামালপুরে নেওয়া পরামর্শ দেন। সেখানে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মহব্বত কবির দেওয়ানগঞ্জ নিউজকে জানান, আমি বিষয়টি জানার সাথেই সাথেই ঘটনাস্থলে গিয়ে উপস্থিত হই। নিজে পরিদর্শন করে সঠিক ঘটনাটি জানার চেষ্টা করি। এখন মামলা হয়নি। তবে মামলার প্রস্ততি চলছে। মামলা হলে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীকে শাস্তির আওতায় আনতে পারব।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -