বকশীগঞ্জে গুচ্ছগ্রাম ও আশ্রয়ণ প্রকল্পে চেয়ারম্যানের অনিয়ম

bakshiganj
ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদ

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদের বিরুদ্ধে গুচ্ছগ্রাম ও আশ্রয়ণ প্রকল্পসহ নানা কর্মসূচি বাস্তবায়নে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে দুদকে লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার মো. ছামিউল হক।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মেরুরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদ নিজ গ্রাম মাদারের চরে প্রভাব খাটিয়ে দুটি গুচ্ছগ্রাম ও একটি আশ্রয়ণ প্রকল্প স্থাপন করেন। গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার কর্মসূচির আওতায় সরকারি জমিতে এসব প্রকল্প বাস্তবায়নের নিয়ম থাকলেও তিনি তা করেছেন ব্যক্তি মালিকানা জমিতে। প্রকল্প বাস্তবায়নে দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে শ্রমিক নিয়োগ না দিয়ে পাশের নদী থেকে ড্রেজার দিয়ে মাটি কাটেন এবং ভুয়া মাস্টার রোল দেখিয়ে মজুরির টাকা আত্মসাৎ করেন। শুধু তাই নয়, যাদের জমিতে প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছেন তাদেরই সেখানে পুনর্বাসন দেখিয়েছেন। গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প দুটি বর্তমানে গো-চারণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে।

- Advertisement -

আরো জানা গেছে, একইভাবে ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে ২০১২-২০১৩ সালে ইউএনডিপি কর্তৃক বাস্তবায়িত বসতভিটা উঁচুকরণ প্রকল্পের জমি দেখিয়ে একই ইউনিয়নের দুর্গাপুর কলকিহারা গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে সরকারি বরাদ্দের ২৪৩ মেট্রিক টন গম-চাল আত্মসাৎ করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদ।

এছাড়া চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ইউনিয়ন পরিষদের ভবনে কার্যক্রম পরিচালনা না করে উপজেলা সদরে ভাড়া বাড়িতে বসে কার্যক্রম চালাচ্ছেন জাহিদুল ইসলাম জেহাদ। এতে করে ইউনিয়নের ভিজিডি, ভিজিএফসহ সব ধরনের ভাতাভোগীদের উপজেলা সদরে গিয়ে সেবা পেতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

অভিযোগ রয়েছে, ইউনিয়নের মেম্বারদের বঞ্চিত করে স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে সমুদয় আর্থিক বরাদ্দ আত্মসাৎ করেছেন চেয়ারম্যান। একই সঙ্গে ওই ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৭টিকে উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত করেছেন তিনি। এছাড়া তার বিরুদ্ধে ২০২০ সালের জুন মাসের ভিজিডি বরাদ্দের সমুদয় চাল উপকারভোগীদের মাঝে বিতরণ না করে কালোবাজারে বিক্রি করারও অভিযোগ রয়েছে।

অভিযুক্ত মেরুর চর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিহাদুল ইসলাম জেহাদ জানান, এসব অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই। ইউনিয়নের কিছু মেম্বার ব্যক্তিগত স্বার্থ উদ্ধারে ব্যর্থ হয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছেন।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -