শরণখোলায় স্বামীকে জবাই চেষ্টাঃ গ্রেফতার স্ত্রী

শরণখোলায় স্বামীকে জবাই করে হত্যাচেষ্টা স্ত্রী কুমকুম আক্তার সিমু (২৩)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। দক্ষিন বাধাল গ্রামে শনিবার ভোর রাতে স্বামীকে জবাই করার চেষ্ঠা করে তার স্ত্রী। গলাকাটা স্বামী রুমান মৃধা গুরুতর অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

রুমানের মা রেনু বেগম সাংবাদিকদের বলেন, গত শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টা সময় আমার ছেলের ঘর থেকে গোঙানির আওয়াজ শুনতে পাই। বউয়ের কাছে জানাতে চাইলে সে বলে বুরাল ঝগড়া বাধিয়েছে। আমার কাছে সন্দেহ লাগলো। বিরাল এমন শব্দ করতে পারেনা। তাই ছেলের বাবাকে বিষয়টি জানালে তিনি ঘরের দড়জা ভেঙ্গে রুমানের ঘরে ডুকে দেখেন রুমানকে লেপ দিয়ে চেপে রাখা হয়েছে। ঘরের মেঝেতে ও বিছান্য রক্তে ভেজা।

- Advertisement -

এসময় গলাকাটা ছেলেকে অচেতন অবস্থায় দেখে চিৎকার শুরু করলে আসেপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। এই ফাকেই ঘাতক কুমকুম ঘর থেকে পালিয়ে যায়।

ভোর ৫টায় পার্শ্ববর্তী মোরেলগঞ্জের বাস্পস্ট্যান্ডে লোকজনের কাছে ধরা পরে কুমকুম। পরে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়।

আহত রুমান যশোরের সিকিউরিটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। ৮ মাস আগে মোবাইলে প্রেমের মাধ্যমে বিয়ে করেন কুমকুমকে। কুমকুম্মের বাড়ি লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল গ্রামের শেখ হারুন-অর-রশিদের মেয়ে।

স্ত্রী কুমকুমের অভিযোগ, আমার স্বামী বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য প্রায় মারধর করত। নির্যাতন সইতে না পেরে তাকে জবাই করে মেরে ফেলতে চেয়েছিলাম

শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ দিলীপ কুমার সরকার জানান, ‘এ ঘটনায় ছেলের মা রেনু বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার একমাত্র আসামি স্ত্রী কুমকুম আক্তার শিমুকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার কারণ উদঘাটনে তদন্ত চলছে।’

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -