শেরপুরে লছমনপুর-ঘুঘুরাকান্দি সড়কের কালভার্টটি যেন মরণফাঁদ, ভোগান্তিতে জনসাধারণ

sherpur

শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের একটি কালভার্টের বেশীর ভাগ অংশ ভেঙ্গে গিয়ে যাতায়াত ব্যবস্থা মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ আকার ধারণ করেছে।  এর ফলে এটি এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। কালভার্টটি লছমনপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মৃত কিনু মাহমুদের বাড়ি সংলগ্ন ঈদ গা মাঠ সংলগ্ন।

রাস্তাটি এলাকায় প্রবেশের একমাত্র মাধ্যম হওয়ায় গত ৩ মাস থেকে এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন। কালভার্ট টি মেরামতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কোন উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। কালভার্টটি ঝুঁকিপূর্ণ থাকায় যে কোন সময় বড় ধরণের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে এমনটাই আশংকা করছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

- Advertisement -

জানা যায়, লছমনপুর ইউনিয়নের কুসুমহাটি বাজার থেকে দশআনি-ঘুঘুরাকান্দি দিয়ে লক্ষিরচর হয়ে নান্দিনা পর্যন্ত শেষ হয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী তালেব মিয়া জানান, রাত পোহালেই এ রাস্তা দিয়ে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী ও নানা শ্রেণী পেশার হাজারো মানুষ নিয়মিত যাতায়াত করছেন। কিন্তু কালভার্টটি ঝুঁকিপূর্ণ থাকার ফলে যেকোন সময় যাত্রীরা যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনার স্বীকার হতে পারে। অন্যদিকে এই স্থানে অপরিচিত যাত্রীদের সতর্ক করার মত কোন বিপদ চিহ্নও নেই।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম মিয়া দেওয়ানগঞ্জ নিউজে বলেন, এই রাস্তাটি  এলজিইডির আওতাধীন তাই ভাঙ্গা কালভার্টটি নতুন করে সংস্কার করার জন্য প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। এলজিইডির কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে কালভার্টটি পরিদর্শন করেছেন, অনুমোদিত হলে শীঘ্রই কাজ শুরু হবে।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -