স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে থাকত ঢাকায়, চাচার ধর্ষণের শিকার ভাতিজি

naogaon
ন্যায়বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ভুক্তভোগী কলেজছাত্রী

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের প্রলোভন এবং আপত্তিকর ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে এক কলেজছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ এবং গর্ভপাত করানোর  অভিযোগ উঠেছে চাচার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে নওগাঁর মান্দা উপজেলার মৈনম ইউনিয়নের বিলদুবলা গ্রামে।

অভিযুক্ত নাহিদ হাসান নান্নু ওই গ্রামের নজরুল ইসলামের  ছেলে। সে এলাকায় বখাটে হিসেবে পরিচিত।

- Advertisement -

স্থানীয়রা জানিয়েছে, ঘটনার পর থেকে বখাটে নান্নু পলাতক। এছাড়া ওই ঘটনায় অসহায় কলেজছাত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে পরিবার। বর্তমানে ভুক্তভোগী ন্যায় বিচারের আসায় বিভিন্ন জনের কাছে যাচ্ছেন।

জানা যায়, নাহিদ হাসান নান্নু ও ওই কলেজছাত্রীর বাড়ি পাশাপাশি। সম্পর্কে চাচা হওয়ায় তার বাড়িতে অবাধে যাতায়াত ছিল নান্নুর। এক পর্যায়ে বিভিন্ন প্রলোভন এবং চাকুরির অযুহাত দেখিয়ে কিছুদিনের জন্য তাকে ঢাকায় নিয়ে যায় নান্নু। সেখানে দুজনে স্বামী- স্ত্রী পরিচয়ে থাকত। সম্প্রতি করোনার কারণে তারা বাড়িতে ফিরে আসে। কিন্তু ঢাকায় থাকাকালীন নান্নু বিয়ের প্রলোভন দিয়ে একাধিকবার শারিরীক সম্পর্ক করায় মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন ওই কলেজছাত্রী। ২৬ মে তাকে ওই উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গর্ভপাত করায় নান্নু।

ভূক্তভোগীর মা-বাবা বলেন, আমরা গরিব-অসহায় মানুষ। আমাদের মেয়ের সঙ্গে নান্নু চরম অন্যায় করেছে। আমরা তার সুষ্ঠু চাই।

অভিযুক্ত নাহিদ হাসান নান্নু ও তার পরিবারের সদস্যরা পলাতক থাকায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মান্দা থানার ওসি শাহিনুর রহমান বলেন, ধর্ষণ এবং নারী নির্যাতনের সঙ্গে জড়িতদের কোনো ছাড় নেই। ভুক্তভোগী কলেজছাত্রী অভিযোগ করেননি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -