স্মার্ট কার্ড থাকলেই মিলবে বিশুদ্ধ পানি

পানির অপর নাম জীবন। ব্যস্তময় ঢাকা শহরে বিশুদ্ধ পানি কথাটা কেবল রূপকথার গল্পের মতো। এখনও শহরের অধিকাংশ লোক দূষিত বা আর্সেনিকযুক্ত পানি পান করে।

শহরবাসীকে বিশুদ্ধ পানি দিতে চালু হয়েছে স্মার্ট কার্ডে প্রি-পেইড সার্ভিস। স্মার্ট কার্ডে পানি রাজধানীতে এটিএম (অটোমেটেড টেলার মেশিন) বুথ বসিয়ে প্রি-পেইড কার্ডের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি বিক্রি করছে ওয়াসা কর্তৃপক্ষ। প্রতি লিটার পানির জন্য তাদের সার্ভিস চার্জ হচ্ছে মাত্র ৪০ পয়সা।

- Advertisement -

তবে গ্রাহককে প্রথমে ২০০ টাকার একটি এটিএম কার্ড সংগ্রহ করে প্রয়োজন অনুযায়ী টাকা রিচার্জ করতে হবে। রিচার্জ করা কার্ড মেশিন এ ঢুকিয়ে নির্ধারিত বোতাম চাপ দিলেই পড়তে থাকবে বিশুদ্ধ পানি। প্রি-পেইড কার্ডধারী গ্রাহকেরা এই বিশুদ্ধ পানির সেবাটি পাবেন সকাল ৬টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত।

রাজধানীর নতুন বাজার এলাকায়, ওয়াসার ওয়াটার এটিএম বুথে গভীর নলকূপের মাধ্যমে পানি তুলে পাইপের মাধ্যমে নির্দিষ্ট ট্যাংকের পানি শোধন করে বুথে নেওয়া হচ্ছে। এরপর বুথে স্থাপিত দুটি এটিএম মেশিনে কার্ড ঢুকিয়ে বিশুদ্ধ পানি নিচ্ছেন প্রি-পেইড কার্ডধারী গ্রাহকেরা।

পানির বুথের কর্মকর্তা ফারুক আহমেদ বলেন, ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে চালু হয় নতুন বাজারের এটিএম বুথটি। কম খরচে বিশুদ্ধ পানি পাওয়ার সুযোগ থাকার কারণে দিন-দিন এ সেবাটি জনপ্রিয় হচ্ছে। এতে করে যেমন পানির অপচয় হচ্ছে না। তেমনি গ্রাহকেরা পাচ্ছেন চাহিদামতো বিশুদ্ধ পানি।

এই সেবাটির গ্রাহক হতে হলে, শুরুতে একজন গ্রাহককে ২ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি নিয়ে ওয়াসার বুথে যেতে হবে। ফারুক আহমেদ বলেন, ‘আমাদের সার্ভারে গ্রাহকের তথ্য এন্ট্রি করার পর আমরা গ্রাহককে একটি স্মার্ট কার্ড প্রদান করি। একজন গ্রাহককে স্মার্ট কার্ড প্রদান করতে ১০-১৫ মিনিট সময় লাগে।’ তিনি জানান, গ্রাহকেরা প্রথমে ফেরতযোগ্য ২০০ টাকা জামানত দিয়ে এটিএম কার্ডে বিভিন্ন পরিমাণ টাকা পর্যন্ত রিচার্জ করতে পারবেন। কার্ডের টাকা শেষ হলে আর পানি নেওয়া সম্ভব হবে না। পরে কার্ডে টাকা রিচার্জ করে পানি নেওয়া যাবে।

ডেনমার্কের গ্রুন্ডফোজ কোম্পানির সহায়তায় স্থাপিত হয় ফকিরেরপুল এটিএম বুথটি। এই বুথটি২০১৬ সালের ৬ অক্টোবর উদ্বোধন করা হয়। এরপর থেকে প্রি–পেইড কার্ডের মাধ্যমে পানি সরবরাহ করছে তারা। এ ছাড়া প্রথম পর্যায়ে ওয়াসার পাইলট প্রকল্পের আওতাধীন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় আরও ৫টি ওয়াটার এটিএম বুথ স্থাপন করে তারা। আমেরিকার কোম্পানি ড্রিংকওয়েলের সহায়তায় বুথগুলো রয়েছে শহরের মুগদা, মিরপুরের শেওড়াপাড়া, ঢাকা পলিটেকনিক, কদমতলা ও সিদ্ধেশ্বরী বয়েজ অ্যান্ড কলেজ এলাকায়।

জানা যায়,যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠানের অনুদানে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় বর্তমানে ৩০টি পানির বুথ চালু রয়েছে। পর্যায়ক্রমে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বিশুদ্ধ পানির জন্য এটিএম বুথ চালু করছে ঢাকা পানি সরবরাহ ও পয়োনিষ্কাশন কর্তৃপক্ষ। আশা করা যায় এই উদ্যোগের মাধ্যমে রাজধানীবাসিকে বিশুদ্ধ পানির সংকট আর পোহাতে হবে না।

প্রতিবেদক/ডিএন/মোঃ নয়ন,আইসিটি প্রতিনিধি

আপনার মতামত দিন
- Advertisement -